দ্রুত হাই প্রেসার কমানোর উপায়

কিভাবে আমি আমার ব্লাড প্রেসার দ্রুত খাওয়াতে পারি?

ব্লাড প্রেসার যাকে হাইপার টেনশন বলা হয় এটি একটি বিপদজনক শারীরিক অবস্থা। চল্লিশ ঊর্ধ্ব প্রায় প্রত্যেক লোকজনেরই হাই ব্লাড প্রেসার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। হাই ব্লাড প্রেসার নানান কারণে হয়ে থাকে।এরমধ্যে কয়েকটি উল্লেখযোগ্য কারণ হলো নিয়মিত শরীর চর্চা না করা এবং একই সাথে নিয়মিত সুষম খাদ্য না গ্রহণ করা।

দ্রুত হাই প্রেসার কমানোর উপায়
দ্রুত হাই প্রেসার কমানোর উপায়
তবে যাদের একবার হাই ব্লাড প্রেসার হয়ে যায় তাদের ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে রাখতে হয়। হাই ব্লাড প্রেসার যখন-তখন বাড়তে পারে।

যদি আপনার হঠাৎ করে ব্লাড প্রেসার বেড়ে যায় তখন আপনি কি করবেন আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনি এই বিষয়টি জানতে পারবেন।

দ্রুত হাই ব্লাড প্রেসার কমানোর উপায় হিসেবে আপনি নিচের এই স্টেপগুলো ফলো করতে পারেন আশা করছি যদি আপনার অথবা আপনার পরিচিত কারো হঠাৎ করে হাই ব্লাড প্রেসার বেড়ে যায় তাহলে নিচের এই স্টেপগুলো ফলো করলে দ্রুত একটি কার্যকরী ফলাফল পাবেন।

চলুন হাই ব্লাড প্রেসার কমানোর উপায় গুলো জেনে নেই
উষ্ণ গরম পানিতে গোসল করাঃ  ঈষৎ উষ্ণ গরম পানিতে গোসল করলে আপনার মাসেলের যে শক্ত ভাব সেটি ধীরে ধীরে নরম হবে এতে করে হাই ব্লাড প্রেসার অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আসবে। কমপক্ষে ১৫ মিনিট ধরে সামান্য গরম পানি দিয়ে গোসল করা যেতে পারে।
শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়ামঃ ব্লাড প্রেসার বেড়ে গেলে আমরা গভীর নিশ্বাস গ্রহণ করব এবং ধীরে ধীরে সে নিঃশ্বাস ছেড়ে দিব এবং নিঃশ্বাসটি ভিতরে কিছুক্ষণ রাখার চেষ্টা করব। বিশ্বাসটা ভিতরে কয়েক সেকেন্ডের জন্য আটকে রেখে তারপর ছাড়তে হবে এতে করে ও হাই ব্লাড প্রেসার অনেকটাই নিয়ন্ত্রনে চলে আসবে তবে মাথার থেকে সমস্ত ধরনের চিন্তা ঝেড়ে ফেলতে হবে।
শান্ত থাকাঃ যখন ব্লাড প্রেসার বেড়ে যাবে তখন কোন ধরনের শারীরিক এবং মানসিক পরিশ্রম করা যাবে না একদম শান্ত হয়ে থাকতে হবে এবং কোন ধরনের চিন্তা করা যাবে না শান্ত হয়ে চিন্তা মুক্তভাবে কিছুক্ষণ থাকলে ধীরে ধীরে ব্লাড প্রেসার কমে আসবে।
উপরের এই টেকনিকগুলো সাময়িক সময়ের জন্য হাই ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারে এবং হঠাৎ বেড়ে যাওয়া পেশার কমানোর জন্য কিছুটা হলেও কাজে দেয়।
তবে প্রেসার নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য আপনাকে বেশ কয়েকটি বিষয় ফলো করতে হবে যেমন আপনি ভালো ভালো বই পড়তে পারেন চিন্তা মুক্ত থাকার জন্য, মেডিটেশন করতে পারে, হালকা হাটাহাটি করতে পারেন ইত্যাদি।
দীর্ঘমেয়াদী এই সমস্যাটা দূর করার জন্য আপনি নিজের এই স্টেপগুলো ফলো করতে পারেনঃ
  1. অতিরিক্ত ওজন কমানো
  2. ধূমপান ত্যাগ করা
  3. অ্যালকোহল অথবা ক্যাফিন জাতীয় জিনিস ত্যাগ করা
  4. সুন্দর ঘুমের অভ্যাস গড়া
  5. চাপমুক্ত পরিবেশে থাকা
  6. অল্প চিনি লবণ এবং রিফাইন ক্রাইমড্রোহাইড রাইস খাওয়া
  7. নিয়মিত ব্যায়াম করা
  8. ধ্যান বা মেডিটেশন করা
যদি হঠাৎ করে বেড়ে যায় তাহলে কিভাবে বুঝবেনঃ
যদি আপনার হঠাৎ করে ব্লাড প্রেসার বেড়ে যায় তাহলে বোঝার জন্য নিজের লক্ষণ গুলো আপনি দেখতে পারেনঃ
  •  মাথাব্যথা
  •  নাক দিয়ে রক্ত পড়া
  •  মাথা ঝিমঝিম করা
  •  শরীরের চামড়া এবং মুখ লাল হয়ে যাওয়া
  •  রক্ত প্রসাব করা
আশা করছি দ্রুত হাই ব্লাড প্রেসার কমানোর উপায় সম্পর্কে আপনি জানতে পেরেছেন যদি এই পোস্টটি আপনার কাজে লেগে থাকে তাহলে এটি আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করবেন ধন্যবাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top